রিং আইডি কি? | রিং আইডি (ringID) থেকে ইনকাম


রিং আইডি (ringID) এর বিশেষত্ব হলো এটি কম ব্যান্ডউইথ ইন্টারনেটেও ব্রাউজ করা যায়। এছাড়াও বর্তমানে রিং আইডি (ringID) থেকে রেফার, ইনভেস্ট ও কমিউনিটি জব করার মাধ্যমে ইনকাম করা যায়। এক কথায় বলা যায় রিংআইডি হলো ইউজার ফেন্ডলি।


রিং আইডি কি? | রিং আইডি (ringID) থেকে ইনকাম

রিং আইডি কি? | রিং আইডি (ringID) থেকে ইনকাম

রিং আইডি কি? (What is Ring ID in Bengali)

রিং আইডি (Ring ID) হলো একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। রিংআইডি ২০১৫ সালের জুলাই মাসে অফিসিয়াল ভাবে তাদের যাএা শুরু করে। রিং আইডি কানাডার মন্ট্রিয়েল সিটিতে অবস্থিত রিং ইনকর্পোরেশন দ্বারা পরিচালিত একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বা সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্লাটফর্ম।


রিং আইডি (ring ID) এমন একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বা সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্লাটফর্ম যার মাধ্যমে একজন ব্যবহারকারী ফোন কল, ভয়েস কল, ভিডিও কল, নিউজফিড, স্টিকার, গোপন চ্যাট (সিক্রেট চ্যাট)সহ ইত্যাদি ধরনের সেবা পায়। 


আরও পড়ুনঃ কি ভুলের কারণে রিংআইডি থেকে টাকা পান না?


রিং আইডির (Ring ID) চালু হয় কবে? | রিং আইডি প্রতিষ্ঠাতা কে?

২০১৫ সালের জুলাই মাসে রিং আইডি (Ring ID) প্রথম অফিসিয়াল ভাবে চালু করা হয়। যৌথভাবে দুইজন ব্যক্তি রিং আইডির (Ring ID) চালু করেন। কানাডা প্রবাসী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আইরিন ইসলাম এবং শরিফ ইসলামের যৌথ উদ্যোগে রিং আইডির (Ring ID) যাত্রা শুরু। 


রিং আইডি (ringID) থেকে ইনকাম

বর্তমানে রিং আইডির ব্যবহারকারীর সংখ্যা দিন দিন খুব ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাবেই না কেন, রিং আইডি (ringID) আমাদের কে ঘরে বসে ইনকাম করা সুযোগ করে দিয়েছে। রিংআইডি যখন প্রথম চালু করা হয়েছিল তখন থেকেই আমরা এখন পর্যন্ত রেফার করে ইনকাম করতে পারি। তারপর ২০২১ সালের মার্চ মাসে রিং আইডি কমিউনিটি জবস  চালু করছে সেখান থেকেও আয় করতে পারি।


রিং আইডি (ringID) -তে আমাদের ঘরে বসে ইনকাম করার সুযোগ করে দেওয়ায় অল্প সময় নিয়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এখন বর্তমানে রিং আইডিতে আগের তুলনায় ইনকাম অনেক বেশী। আপনাদের মনে প্রশ্ন যাগতে পারে রিংআইডি তে কয়টি উপায়ে আয় করা য়ায়?


রিং আইডি (ringID)তে তিনটি উপায়ে আয় করা য়ায়। তা হলোঃ

  • রেফার করে আয়
  • ইনভেস্ট করে আয়
  • কয়েন বাই/সেল করে আয়


উপরের ৩টি মাধ্যম কিভাবে রিং আইডি (ringID)তে ইনকাম করতে পারবেন। চলুন জেনে নেইঃ


রিং আইডি (ringID) তে রেফার করে ইনকাম

রিংআইডি প্রথমে যখন চালু হয় তখন থেকেই রেফার করে ইনকাম করা যেত। বলা যায় রিং আইডি শুরু থেকে এখন পর্যন্ত রেফার করার সিষ্টেম চালু আছে। আপনি চাইলে ঘরে বসে শুধু রেফার করেই মাসে অনেক ইনকাম করতে পারবেন। রিংআইডি তে এখন রেফারেল এ ২০ টাকা করে দেয়।


আরও পড়ুলঃ কি ভুলের কারণে রিং আইডি থেকে টাকা পান না?


রিং আইডি (ringID) তে আপনি যদি রেফার কোড দিয়ে আপনার কোন বন্ধু বা নতুন কাও অ্যাকাউন্ট খুলে দেন, তাহলে আপনি পাবেন ২০ টাকা আর যাকে  অ্যাকাউন্ট খুলে দিবেন সে পাবে ৫০ টাকা। এই ভাবে আপনি আপনার আশে পাশে থাকা যত মানুষ কে আপনার রেফার কোড একাউন্ট খুলে দিবেন তোতই আপনার ইনকাম হবে।


এই ভাবে যদি আপনি ৫০০ টা রেফার করতে পারেন তাহলে (৫০০x২০= ১০,০০০) ১০হাজার টাকা। রিংআইডিতে আপনি যত খুশি ইচ্ছা রেফার করতে পারবেন। তো বুঝতেই পারছেন, এই ভাবে রেফার করে মাসে আপনি অনেক টাকা ইনকাম করতে পাবেন।


কমিউনিটি জবের মাধ্যমে ইনকাম

২০২১ সালের মার্চ মাসে রিং আইডি কমিউনিটি জবস  চালু করছে তখন থেকেই ইনকাম করতে পারি।কমিউনিটি জবে ইনভেস্ট করে আয় কর‍তে হয়।আমাদের কমিউনিটি জব থেকে ইনকাম করতে চাইলে প্রথমে মেম্বারশিপ কিনতে হবে। প্রত্যকটি মেম্বারশিপের মেইন কাজ হচ্ছে ভিড়িও এড দেখা। কমিউনিটি জবে ২টি মেম্বারশিপ আছেঃ ১. সিল্ভার মেম্বারশিপ ২. গোল্ড মেম্বারশিপ।


১. সিল্ভার মেম্বারশিপ 

রিং আইডি (ringID) সিল্ভার মেম্বারশিপ এর মূল্য ১২,০০০ টাকা। প্রতিদিন সিল্ভার মেম্বারশিপে ৫০ টি ভিড়িও এড দেখতে পারবেন। ১টি ভিড়িও এড দেখলে পাবেন ৫টাকা। তাহলে আপনার প্রতিদিন ইনকাম হবে (৫০x৫= ২৫০) ২৫০ টাকা। আপনার প্রত্যক মাসে ইনকাম হবে (২৫০x৩০= ৭৫০০) ৭,৫০০ টাকা।


২. গোল্ড মেম্বারশিপ

রিং আইডি (ringID) গোল্ড মেম্বারশিপ এর মূল্য ২২,০০০ টাকা। প্রতিদিন গোল্ড মেম্বারশিপে ১০০ টা ভিড়িও এড দেখতে পারবেন। ১টি ভিড়িও এড দেখলে পাবেন ৫টাকা। তাহলে আপনার প্রতিদিন ইনকাম হবে (১০০x৫= ৫০০) ৫০০ টাকা। আপনার প্রত্যক মাসে ইনকাম হবে (৫০০x৩০= ১৫,০০০) ১৫,০০০ টাকা।


রিং আইডি (ringID) তে কয়েন বাই/সেল করে ইনকাম

রিং আইডি তে জনপ্রিয় আরেকটি ইনকাম হচ্ছে কয়েন বেচা কেনা করা। এখন আপনার মনে প্রশ্ন যাগতে পারবে, রিং আইডি তে কয়েন দিয়ে কি হয়?

রিংআইডি তে করো সাথে ভিড়িও কিংবা অড়িও কথা বলতে গেলে আপরা একউন্টে কয়েন থাকতে হবে। রিংআইডি তে কয়েন দিয়েই অড়িও বা ভিড়িও কলে কথা বলতে হয়।


আরও পড়ুনঃ কিভাবে রিং আইডি কয়েন ক্রয়/বিক্রয় করবেন?


আরো, রিংআইডি তে করা লাইভে গিয়ে তাকে কয়েন গিফট্ করতে পাবেন। যারা লাইভ করে তারা মানুষের কাছ থেকে অনেক কয়েন গিফট্ পায়। তারা আর সেই কায়েন গুলো কম দামে বিক্রি করে। আপনি চাইলে তাদের কাছ থেকে সেই কয়েন কিনতে পারেন। আবার অনেক মানুষ আছে যারা কিনে, আপনি চাইলে তাদের কাছে একটু লাভে আপনি আপনার কয়েন গুলো বিক্রি করে দিবে।


এভাবেই দেখবেন দিনে অনেক কয়েন ক্রয়/বিক্রয় করতে পারবেন। আপনি রিং আইডি (ringID) তে কয়েন বাই/সেল করে মাসে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।


তো এই ছিলো আজকের আর্টিকেল। আর্টিকেল কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন, এছাড়াও আর্টিকেলের বিষয়ে যেকোন কিছু জানতে কমেন্ট করুন। আমি যথাসম্ভব আপনার কমেন্টের উত্তর দিবো। সাথে থাকুন, ধন্যবাদ।


আপনার মুল্যবান মন্তব্য "SP Bangla টিম" দ্বারা অ্যাপ্রুভ হওয়ার পর ব্লগে প্রদর্শিত হবে। অনুগ্রহপূর্বক কোন প্রকার স্প্যাম কমেন্ট করবেন না :-)

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post